‘Sunnah: The ultimate lifestyle’/ আরিফ আজাদ

ডায়াবেটিসকে ঝেঁটিয়ে বিদেয় করতে চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা নানান উপায়, পদ্ধতি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। সম্প্রতি যে বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করে তারা খুব উপকারী ফলাফল পেয়েছেন তা হলো Diet 5:2 ।
কি এই Diet 5:2, তাইনা? বলছি। বিবিসির হেলথ স্পেশালিস্টরা আপনাকে সাজেস্ট করছেন যে, শরীরের ওজন কমাতে এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি এড়াতে সপ্তাহে আপনি পাঁচদিন নিয়মিত খাওয়া-দাওয়া করেন, আর বাকি দুইদিন আপনি উপোস তথা রোজা রাখেন। এতে করে আপনার রক্তের মধ্যে কোলেস্টেরল এবং গ্লুকোজ সহনীয় মাত্রায় থাকবে সবসময়। এর আরেকটা সুবিধা এই, এই পদ্ধতিতে বিশেষ কোন খাবার খেতে কোন নিষেধাজ্ঞা থাকেনা সাধারণত।

বিবিসি একটা ডকুমেন্টারি করেছিলো ‘Eat, Fast & Live Longer’ শিরোনামে। বিবিসির হেলথ স্পেশালিস্ট Michel Mosley এই ডকুমেন্টারির জন্য সপ্তাহে পাঁচদিন খেয়েছেন, দু’দিন উপোস থেকেছেন। এরফলে তিনি এই পদ্ধতি থেকে চমকপ্রদ ফলাফল পেয়েছেন।

কোন পাঁচদিন খাবেন আর কোন দুইদিন রোজা রাখবেন? বিবিসি বাতলে দিচ্ছে সেটাও। তারা বলছে, টানা দু’দিন উপোস না করে, মাঝখানে বিরতি রেখে উপোস করাটাই উত্তম। বিবিসি তাদের ‘What is 5:2 Diet?’ শিরোনামের আর্টিকেলে লিখেছে,- ‘Avoid fasting on two consecutive days- instead break your week up, for example, by fasting on Monday & Thursday- this helps prevent tiredness’.

স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে বিবিসি আপনাকে দুই দিন রোজা (তাদের ভাষায় উপবাস) রাখতে বলছে। এও বলে দিচ্ছে, টানা দুই দিন না রেখে বিরতি দিয়ে রাখুন। তাহলে কোন দুইদিন? বিবিসি বাতলে দিচ্ছে- সপ্তাহের সোমবার এবং বৃহস্পতিবার রোজা রাখুন। এটাই উত্তম।
শুধু বিবিসিই নয়, এটা নিয়ে আর্টিকেল আছে ‘Life Magazine’ এ, ডেইলি মেইল, ডেইলি এক্সপ্রেস সহ আরো বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মাধ্যমে। এই পদ্ধতি নিয়ে বিখ্যাত একটা বইও আছে Kate Harrison এর লেখা। ‘The 5:2’ নামে।

এবার রাসূল (সাঃ) এ দু’টি হাদীস পড়ুন।
আবু কাতাদাহ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন- রাসূল (সাঃ) কে সোমবার দিন রোজা রাখা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন,- এই দিনেই (অর্থাৎ সোমবারে) আমার জন্ম হয়েছে এবং এই দিনটাতেই আমাকে নব্যুয়াত দান করা হয়েছে’ [মুসলিম, হাদীস নম্বর- ১১৬২]

অন্য একটি হাদীসে রাসূল (সাঃ) বলেছেন,- ‘(প্রতি সপ্তাহে) সোম ও বৃহঃস্পতিবার বান্দার আমল আল্লাহর দরবারে পেশ করা হয়ে থাকে। কাজেই রোজাদার অবস্থায় আমার আমলগুলো আল্লাহর দরবারে পেশ করা হোক- এমনটিই আমি পছন্দ করি’।
[সুনানে তিরমিজি: হাদীস ৭৪৭]

অর্থাৎ, সপ্তাহের সোম এবং বৃহঃস্পতিবারে নফল রোজা রাখাটা রাসূল (সাঃ) এর একটা সুন্নাহ। রাসূল (সাঃ) নিজে রেখেছেন এবং আমাদের রাখতেও বলা হয়েছে। আমাদের রাসূল (সাঃ) কিন্তু কোনদিনও বিবিসির হেলথ ডিপার্টমেন্টে চাকরি করেননি। নামের আগে-পিছে ডজন খানেক ডিগ্রিধারী চিকিৎসকও তিনি ছিলেন না। কিন্তু তিনি ছিলেন আল্লাহর পক্ষ থেকে মানবতার জন্য ‘রহমত’ স্বরূপ। তাঁর দেখানো পথ এবং দেখানো মতেই রয়েছে আমাদের জন্য কল্যাণ।
‘নিশ্চয়ই রাসূলের জীবনেই রয়েছে তোমাদের জন্য সর্বোত্তম আদর্শ’। [আল আহযাব: ২১]

ছবি সংগ্রহ: freeimages

 

3Shares

Check Also

জবির সিএসইর পুননিযুক্ত বিভাগীয় প্রধানের সাথে সফটরিদম কর্মকর্তাদের শুভেচ্ছা বিনিময়

হাফিজুর রহমান:( সফ্টরিদম আইটি থেকে ) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের পুননিযুক্ত বিভাগীয় …

আসলেও ইসলাম কতটা সামাজিক ?

আমাদের সমাজে একটা গোষ্ঠির মাঝে প্রকট একটি ধারণা বাসা বেধে আছে যে সত্যই কি ইসলাম সামাজিক ভাবে উপকৃত? এমন ধারনা তাদের মনে আসার কারনটা ‍খুব বেশি অমূলক নয়। তারা বা আমরা ইসলামকে কতটা জানতে পেরেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *