ফেরেশতা সম্পর্কে কি ধরনের বিশ্বাস রাখবো ??

ফেরেশতা সম্বন্ধে এই বিশ্বাস করবো যে, আল্লাহ এক প্রকার নূরের প্রাণি বানিয়েছেন যাদের কোন জাত বা বিভেদ নেই অর্থাৎ নারী, পুরুষ, ধনি গরিব এসব কোন পার্থক্য ফেরেশতা দের মোধ্য আল্লাহ বানায় নি।

যরা কাম, ক্রোধ, লোভ ইত্যাদি রিপু থেকে মুক্ত।যারা নিষ্পাপ। আল্লাহর হুকুমের বিন্দু মাত্র বরখেলাপ করে না। তারা বিভন্ন আকার ধারন করতে পারে।তারা সংখ্যায় অনেক। আল্লাহ তাদের বিপুল শক্তির অধিকারী বানিয়েছেন। আল্লাহ তাদের সৃষ্টি করে বিভিন্ন কাজে নিযুক্ত করেছেন। মানুষের কৃতকর্ম লিখে রাখার জন্য যে ফেরেশ্তাদের নিযুক্ত করে রেখেছেন তাদের কে “কিরামান কাতিবান” বলা হয়। এমনি ভাবে সৃষ্টির বিভিন্ন কাজে ফেরেশ্তাদের কে আল্লাহ বিভন্ন কাজে নিযুক্ত করে রেছেন। ফেরেশতাদের মধ্যে চারজন সর্ব প্রধান বানিয়েছেন আল্লাহ।

এক. জিব্রাইল ফেরেশতাঃ       

তিনি ওহী ও আল্লাহর আদেশ বহন করে নবীদের নিকট আসতেন। এছাড়া আল্লাহ যখন যে নির্দেশনা প্রদান করেন তা কর্তব্যরত ফেরেশতাদের মধ্যেও পৌছান।

দুই. মীকাঈল ফেরেশতাঃ

তিনি মেঘ প্রস্তুত করা ও বৃষ্টি বর্ষাণো এবং আল্লাহর নির্দেশে প্রানিদের জীবিকা সরবরাহের দায়িত্বে নিযুক্ত।

তিন. ইসরাফীল ফেরেশতাঃ

তিনি রূহ সংরক্ষণ ও সিঙ্গায় ফুৎকার দিয়ে দুনিয়াকে ভাঙ্গা ও গাড়ার কাজে নিযুক্ত।

চার. আযরাঈল ফেরেশতাঃ

জীবের প্রাণ নেয়ার কাজে নিযুক্ত তিনি।তাকে মালাকূল মউতও বলা হয়। রূহ কবয করার সময় তাকে কারও কাছে আসতে হয়না বরং সারা পৃতিবী একটি গ্লোবের মত তার সামনে অবস্থিত, যার আয়ু শেষ হয়ে যায়, নিজ স্থান থেকেই তার প্রাণ তার থেকে নিয়ে নেয়। তবে মৃত ব্যক্তি নেককার হলে রহমতের ফেরেশতা আর বদকার হলে আযাবের ফেরেশতা মৃতের কাছে এসে থাকেন এবং মৃত ব্যক্তির রূহ নিয়ে যান।

আল্লাহ আমাদের সকল কে ইসলাম বুঝার তাওফিক দান করুক (তথ্য সূত্র —-: ছবি —-)

13Shares

Check Also

আসলেও ইসলাম কতটা সামাজিক ?

আমাদের সমাজে একটা গোষ্ঠির মাঝে প্রকট একটি ধারণা বাসা বেধে আছে যে সত্যই কি ইসলাম সামাজিক ভাবে উপকৃত? এমন ধারনা তাদের মনে আসার কারনটা ‍খুব বেশি অমূলক নয়। তারা বা আমরা ইসলামকে কতটা জানতে পেরেছি।

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *