It’s NOT ‘নারী দিবস’ It’s ‘নারী দি বস’ কথা শেষ

বছরের একটা দিন নারীদের সম্মান দেখিয়ে কি হবে যদি বাকি ৩৬৪ দিন তাদের নিয়ে উপহাস রচনা করা হয়?

বছরের একটা দিনেই কেন “সম্মান দাও” বলে চিল্লাচিল্লি হবে যদি বাকি ৩৬৪ দিনই নিজের সম্মানের জায়গাটা তৈরি করার চেষ্টা করতে না পারো? আমার জানতে ইচ্ছে করে, বছরের এই একটা দিনই কেন “মেয়েদের নিরাপত্তা দিন, সম্মান করুন” বলে এত হইচই যদি বাকি ৩৬৪ দিনই পত্রিকার কোনো না কোন পাতায় তাদের লাঞ্চনার খবর ছাপা হয়? বছরের একটা দিনই কেন মেয়েদের নিয়ে এত বক্তৃতা যদি বাকি ৩৬৪ দিনই নিজের ঘরের মেয়েদেরকে নারী বলে গননায় ধরা না হয় ?

বছরের একটা দিনই কেন “চলো শপথ করি” বলে মিনিটে মিনিটে এত হাকডাক যদি বাকি ৩৬৪ দিনই একই শপথ মনে রাখা না হয় ? বছরের এই একটা দিনই কেন অধিকারের দাবী যেখানে বাকি ৩৬৪ দিনই কাটে নিরাপত্তাহীনতায় ? বছরের একটা দিনেই কেন সবার চেতনা জাগে যেখানে বাকি ৩৬৪ দিনই কোনো না কোনভাবে মেয়েদের ছোট করে উপস্থাপন করা হয় বন্ধু মহলে ? বছরের একটা দিনই কেন মেয়েরা আশ্বাস পাবে ভালোভাবে সম্মান নিয়ে বেচে থাকার যেখানে বাকি ৩৬৪ দিনই তারা বঞ্চিত ? সব শপথই কেন বছরের একটা দিনই নেয়া হয়? বাকি ৩৬৪ দিনই কেন নয় ? কেন ?  নারী বলে? এমন আক্ষেপ নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন ফারজানা নিমনি নামের একজন । আর উপরক্ত এই পোস্টের প্রতিটি বাক্য প্রতিটি শব্দই সত্যকে ফুটিয়ে তুলছে । 

  

নারী আজ টাইপিংএর মুদ্রনে লিখিত পত্রাদি, বই পুস্তক ও কিতাবাদির শব্দ বর্নমালার “ সন্মানিত ” শব্দটি দ্বারা সন্মানিত । আদতে নারী অনেক অবহেলিত, আজকাল নারী সংগ্রাম ও যুদ্ধের নামে যতটা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তার পুরোটাই ফেইক পোস্টারে প্রকাশিত । তাদের সংগ্রামের লক্ষ্য কতটা জোড়ালো সেটা অনুমান করে বলা অসম্ভব । 

“ নারী অধিকার চাই ” বা “ নারী সমান অধিকার দিতে হবে ” বলে যে শব্দগুলো আমাদের রোজ গেলানো হচ্ছে সেটার পিছে যুক্তি কি ? পুরুষের থেকে নারী সমান অধিকার পাচ্ছে না সেটা  ? নাকি পুরুষের যে কাজ সেটাই নারী কে করতে দিতে হবে সেটা ? আসলে এমন অনেক কিছুই আছে যেটা নারীর কাজ তো নারীর যে টা পুরুষের কাজ সেটা পুরুষের সেইখানে অবস্যই  নারী অধিকার চাই শব্দ গেলালে হবে না । 

আসলে “ আসল চাওয়া কি ’’ কি চাই নারী অধিকারের নামে এমন দিনটি স্বরণ করে । চাওয়াটা কি কর্ম সম্পাদনের ভাগাভাগি নাকি প্রাপ্ত ভালোবাসার অধিকার । যদি বলেন কাজের অধিকারের অর্ধেক ভাগ বুঝেনেয়ার জন্য এই আন্দোলন তবে বলবো চাওয়ার রাস্তাটা  ভূল । যদি বলেন কেনো ? উত্তর হাজারও উদাহার ছরিয়ে ছিটিয়ে আছে আপনার চারপাশে দেখে নিতে পারেন ।  যদি বলেন ভালোবাসার অধিকার আদায়ের আন্দোলন, তবে বলবো অনেকটা সঠিক চাওয়ায় আছেন  । 

কি করে নারী বিপদ মুক্ত থাকবে ? কিভাবে নারী কে সন্মানিত করবেন বা নারী কিভাবে নিজেকে সন্মানিত রাখবেন ? তার উত্তর খুজতে হবে ?  একজন নারী কে কতটা উপায়ে সন্মান দেখানো যায় তার উত্তর খুজতে হবে । আইনের  সঠিক প্রয়গ, যে যেই ধর্মেরই হোক নিজ নিজ ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ হওয়া, নারীর প্রতি ধর্মের বাণী গুলো মেনে চলা, প্রচুর নৈতিক শিক্ষার ব্যাবস্থা করা আরো অন্য অন্য যে  ব্যাবস্তা নেয়া দরকার সে ব্যাবস্থা নেয়া। 

ভালো থাকুক, মায়ের জাতি । সুধু এটুক অবস্যই মনে রাখবেন It’s NOT ‘নারী দিবস’ It’s ‘নারী দি বস’ কথা শেষ ।

0Shares

Check Also

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

‘মানুষ’ চেনার ব্যাপারে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহুর বেশ চমৎকার একটা ঘটনা । আরিফ আজাদ

‘মানুষ’ চেনার ব্যাপারে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহুর বেশ চমৎকার একটা ঘটনা আছে। একবার এক লোক এসে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *