(ইসলামে ওলামায়ে দেওবন্দ এর অবদান – Contribution of Ulama E Deoband in Islam)
*যখন বাংলাদেশে আহলে হাদিস ছিলো না। পিসটিভি ছিলো না। (ইসলামে ওলামায়ে দেওবন্দ এর অবদান)
*ডাঃ জাকির নায়েক ছিলো না তখন বাংলাদেশ পীর ( ইসলামি মুরুব্বি ছিলো ) সাবেহ রা ছিলেন আর ছিলেন কওমি ওলামায়ে দেওবন্দ ।
*তারাই দেশ ইসলামের কথা ইসলাম কি কেনো ইসলাম এসবের প্রচার করেছে।
*তাদেরই কল্যানে আজ সারা বাংলাদেশ প্রায় ১৪ কোটির উপর মানুষ কালেমা পরে।
*কত যে চক্রান্ত চলেছে সব মাটিকে ইসলাম ও মসুল মান শূণ্য করতে।
*এরাই সময় দিয়ে, রক্ত দিয়ে, শিক্ষা দিয়ে, জীবন দিয়ে, এদেশে ইসলাম প্রচার করেছে , আল্লাহর ইচ্ছায় এরাই ইসলাম কে টিকিয়ে রেখেছে।
*কিন্তু আজ মর্ডান ইসলামের ( ইসলাম সম সময় আধুনিক) ভাবধারার নামধারি আহলে হাদিস এসব কে কোন মূল্য দেয় না।
*তারা শুধু শিরক শিরক করে। এই লোকদের বোঝা উচিত শিরক তারাও করে না।
*তারা আল্লাহরই ইবাদত করে।
*হা কিছু কর্ম পন্থা দেখতে ভিন্ন রকম হতে পারে তবে সেটা স্পষ্ট শিরক সেটা প্রমান করা কষ্ট। ( পীর কে সেজদা , মাজার পুজা জঘন্ন শীরখ এটার সাথে কোন আপষ নেই )।
*সেই সময় ইসলামি মনিষী রা ছিলো প্রচার বিমুখ নিজেদের আরাল রাখতো সব সময়।
*ইসলামি শিক্ষর জন্য এই উপমহাদেশ ( আজকের ভারত , পাকিস্থান , নেপাল , ভুটান , মালদিপ , বাংলাদেশ ) প্রথম যে প্রতিষ্ঠান আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হয়েছিলো সেটা ছিলো কওমি মাদ্রাসা গুলো।
*ভারতের দেওবন্দ থেকে যার যাত্রা শুরু।
*সেটা কে থামিয়ে দেয়ার জন্য বৃটিশ দের কত চক্রান্ত।
*কিন্তু আল্লাহ কওমি আলেমদের অসিলায় এই উপমহাদেশে ইসলাম টিকিয়ে রেখেছেন।
*অাল্লাহ ইসলাম সেই জাতিকেই দেয় , যারা ইসলাম চায়।
*সেই বেহেস্তি আলেম ওলামারা ( এরাও অাপনার মত সাধারন মানুষ) যারা চেয়েছিলো এই উপমহাদেশে ইসলাম থাক।
*আল্লাহও তাদের অসিলায় এদেশে ইসলাম দান করেছে।
*আপনি ইতিহাস দেখেন স্পেন সহ আরো বেশ কয়েকটি দেশ যে গুলো ইসলামি দেশ ছিলো।
*কিন্তু ইসলামের শত্রুদের চক্রান্তে সে দেশ আজ ইসলাম শূন্য।
আমিও কারো দোষ দেবো না।
*তবে যদি তারা প্রতিরোধ করতো তবে অবশ্যই আল্লাহ মুসলমানদের বিজয় দান করতো ।
*কিন্তু তারা নরম হয়ে থেকে তাদের কথা শুনে , জি হুজুর করে সম্মলিত ভাবে ধ্বংস হলো।
*না নিজেরা টিকলো। না ইসলাম টিকাতে পারলো।

*কিন্তু বৃটিশদের চক্রান্ত থেকে ইসলাম কে বাচাতে দাড়ি, টুপি, জুব্বাওয়ালা হাজারো কওমি আলেম জীবন দিয়ে প্রতিরোধ করেছে।

*তার ফলে আজকে এই সমস্ত দেশ মসজিদে আজান হয় । নামাজ হয় ।
*বৃটিশেরা সারা পৃথিবী দখল করেছিলো।
*তারা ফিরে যাবার আগে অনেক দেশে আবার বলছে অনেক দেশে এমন পরিবেশ তৈরী করে গেছে যেখানে আজ ইসলাম পালন করাই কষ্ট মসজিদ , আজান , নামাজ অনেক দুরের কথা ।
*কিন্তু এই উপমহাদেশে বৃটিশ চেষ্টা করেও এটা করতে পারেনি।
*কওমি আলেম এই মানুষ গুলো সামাজিক ভাবে ভদ্র মানুষ
*এদের দিয়ে কোন ধর্ষন, জোর করে চাঁদা বাজি, বাড়ি ঘর ভাংচুর, চুরি ডাকাতি, সুধি কারবার, কারোর উপর জুলুম বা কষ্ট দেয়া, কারো সম্পদ ধ্বংস করার মত আরো হজারও খারাপ দিক আছে।
*এ সমস্ত ঘটনা এদের দিয়ে ঘটেছে এমটা শুনবেন না ( ঘটলেও দশহাজের এক)।

*কিন্তু কওমি শিক্ষক, ছাত্র এর বাইরে জেনারেল শিক্ষিত অনেক কুলাঙ্গার ( সবাই না ) এই ঘটনা ঘটাতে উস্তাদ।

*এরা আপনার প্রতিবেশী হলে আপনার সৌভাগ্য।
*তাদের দ্বারা অাপনি আপনার পরিবার উপকার না পান , ক্ষতি গ্রস্থ হবে না।
*এরাই কওমি আলেম এরাই পীর ( মুরুব্বী, বা শিক্ষক ) এরা এদেশের ইসলামের ধারক।

*অথচ আজ নামধারি আহলে হাদিস ও তার গংরা বর্তমান সমাজে এদরে বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে হাদিস কোর আনের ভুল ব্যখ্যার মাধ্যেমে আমি আমি আবার বলছি এদরে বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে হাদিস কোর আনের ভুল ব্যখ্যার মাধ্যেমে।

*এদের সঙ্গে একত্রে বসতে চাইলে পালিয়ে বেরায়। ধরা দেয় না।
*আসুন ভুলের সমাধান করি। আসবে না , বসবে না।
*শুধু গঙ্গা ফরিং এর মত ছটাং ফটাং করবে। টিভি ও ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাদের প্রচার করে যাবে।
*এটাই হলো ইসলামে ওলামায়ে দেওবন্দ এর অবদান সম্পর্কে সিরিজ ১। আগামীতে এই সম্পর্কে আরো আরো পোস্ট লেখা হবে ইনশাহ আল্লাহ। 
*অাল্লাহ আমাদের সবাইকে সত্য ইসলাম বুঝতে পারার তাওফিক দান করুক ।
*এই লেখার অনেক ধারনাই @খুতুবাতে মাদানী নামক বই এর সারমর্ম ।
লেখক: মোঃ আতিকুর রহমান ।
7:20 এএম । 7/20/2018 ইং ।
পাইকরহাটি, কাশিনাথপুর, পাবনা।
0Shares