ইসলামের বানী

(১) আল্লাহ কষ্টের পর সুখ দেবেন। (সুরা ত্বলাক্ব)

(২) আল্লাহ যাকে ভালোবাসেন তাকে পরীক্ষা করেন।
(তিরমিযী)

(৩) অবশ্যই কষ্টের সাথেই রয়েছে স্বস্তি। (সুরা ইনশিরাহ)

(৪) যার ঈমান যত বড় হবে, তার পরীক্ষা তত ভারী হবে।
(তিরমিযী)

(৫) দুনিয়ার সব কিছু ছোট থেকে বড় হয়। আর মসীবত হচ্ছে তার বিপরীত। মসীবতের শুরুতে তা বড় থাকে, সময় গেলে তা ছোট হতে থাকে। (আরাবী প্রবাদ)

(৬) ধৈর্য্যের চাইতে উত্তম সম্পদ আর কাউকে দেওয়া হয়নি। (সহীহ বুখারী)

(৭) নিশ্চয়ই আল্লাহ ধৈর্যশীল লোকদের সাথেই থাকেন।
(সুরা আল-বাক্বারাহ)

(৮) সুতরাং ধৈর্য্য ধারণ করাই আমার জন্য উত্তম।
(সুরা ইউসুফ)

(৯) আল্লাহ ধৈর্য্যশীল লোকদেরকে পুরষ্কার দেবেন বেহিসাব।

(১০) হে ঈমানদারগণ! তোমরা ধৈর্য্য ও সালাতের মাধ্যমে আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা কর। (সুরা বাক্বারাহ)

(১১) আল্লাহ ছাড়া আর কে বিপদগ্রস্থ লোকের আর্ত-চিৎকার শোনে?

(১২) যারা একে অন্যকে ধৈর্য্য ধারণের উপদেশ দেয় তারা ক্ষতিগ্রস্থ হবে না। (সুরা আল-আ’সর)

(১৩) ধৈর্য্য ঈমানের অর্ধেক। (রিয়াদুস সালেহীন)

(১৪) সুতরাং (হে নবী!) আপনি ধৈর্য্য ধারণ করুন।

(১৫) তোমাদের উপর বিপদাপদ তোমাদের নিজের হাতের কামাই। (সুরা রদ)

(১৬) যে ধৈর্য্য ধারণ করে, সেই হয় বিজয়ী।
(আরাবী নীতি বাক্য)

(১৭) তোমরা ধৈর্য্য ধারণ করো, কারণ বর্তমানের কঠিন দিনের চাইতে সামনে আরো কঠিন দিন আসবে।
(সহীহ হাদীস)

(১৮) সুতরাং (হে নবী) আপনি আপনার রবের জন্য ধৈর্য্য ধারণ করুন। (সুরা মুদ্দাসসির)

(১৯) কাফেররা জাহান্নামের শাস্তি ভোগ করে অতিষ্ঠ হয়ে জাহান্নামের প্রহরীদেরকে বলবে, আমরা আর ধৈর্য্য ধারণ করতে পারছিনা। তোমরা প্রতিপালককে বলো, তিনি যেন চিরতরে আমাদের কাহিনী শেষ করে দেন।

(২০) অনেক বোঝানোর পরেও কাফেররা যখন ঈমান আনতে অস্বীকার করে, তখন আল্লাহ এই আয়াত নাযিল করেছিলেন, “জাহান্নামের আগুনের শাস্তি সহ্য করার ব্যপারে কাফেররা কতইনা ধৈর্য্যশীল!”

(২১) ধৈর্য্য তিন প্রকার
ক – আল্লাহ যা করতে আদেশ করেছেন, কষ্ট হলেও ধৈর্য্য ধারণ করা তা পালন করা।

খ – আল্লাহ যা করতে নিষেধ করেছেন, সেটা থেকে বিরত থাকতে কষ্ট হলেও ধৈর্য্য ধারণ করে সেই কাজগুলো থেকে বিরত থাকা।

গ – আল্লাহর পথে চলার সময় লোকদের কাছ থেকে যে বাধা-বিপত্তি, বিরোধীতা ও আক্রমন আসে, সেইগুলোর ব্যপারে ধৈর্য্য ধারণ করা।

আল্লাহ্‌ তায়ালা আমাদের সকলকে সঠিক বুঝ দান করুক। আমিন

0Shares

Check Also

আসলেও ইসলাম কতটা সামাজিক ?

আমাদের সমাজে একটা গোষ্ঠির মাঝে প্রকট একটি ধারণা বাসা বেধে আছে যে সত্যই কি ইসলাম সামাজিক ভাবে উপকৃত? এমন ধারনা তাদের মনে আসার কারনটা ‍খুব বেশি অমূলক নয়। তারা বা আমরা ইসলামকে কতটা জানতে পেরেছি।

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনাগুলো কেন ব্যর্থ হয়! | Bangla1news.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *